৭৮৯ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা সিসিকের



৭৮৯ কোটি ৩৮ লাখ ৪৭ হাজার টাকার আয় এবং সমপরিমাণ ব্যয় ধরে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের (সিসিক) ২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। রোববার (২৫ আগস্ট) দুপুর সোয়া ১২টায় নগরীর দরগাহ গেটের একটি অভিজাত হোটেলে জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে এই বাজেট ঘোষণা করেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

ঘোষিত বাজেটে মধ্যে সবচেয়ে বেশি আয় ধরা হয়েছে হোল্ডিং ট্যাক্স থেকে। এই খাতে আয়ের লক্ষ্য ধরা হয়েছে ৪৪ কোটি ৮ লাখ, ৮০ হাজার টাকা। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আয় ধরা হয়েছে স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তরের ওপর কর থেকে। এই খাতে সম্ভাব্য আয় ধরা হয়েছে ৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা। আর সিসিকের নিজস্ব বিভিন্ন খাত থেকে মোট ৭৯ কোটি ৪২ লাখ ৯৬ হাজার টাকা আয় ধরা হয়েছে।

এছাড়া সরকারি উন্নয়ন সহায়তা মঞ্জুরি খাতে ২০ কোটি, সিলেট মহানগরের অবকাঠামো নির্মাণ শীর্ষক প্রকল্পখাতে ২০০ কোটি টাকা এবংঅন্যান্য খাতে আয় বাবদ মোট ৭৪ কোটি টাকা ধরা হয়েছে।

বাজেটে রাজস্ব খাতে মোট ৬৭ কোটি ৪৩ লাখ টাকা ব্যয় বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এর মধ্যে সাধারণ সংস্থাপন খাতে ২৯ কোটি ৭ লাখ টাকা, শিক্ষা ব্যয় খাতে ৪ কোটি ৬৮ লাখ টাকাসহ বিভিন্ন খাতে মোট ১২ কোটি ৩১ লাখ টাকা ও উন্নয়ন ব্যয় বাবদ ৫২ কোটি ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

বাজেট বক্তৃতায় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, দ্বিতীয় মেয়াদে নির্বাচিত হওয়ার পর এটি আমার প্রথম বাজেট। নির্বাচনী ইশতেহারে নগরবাসীকে দেয়া প্রতিশ্রুতির আলোকেই এই বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে সিলেট শহরকে জলাবদ্ধতা মুক্ত করেছি। ড্রেন ও ছড়া প্রশস্থ করায় এটি সম্ভব হয়েছে।

তিনি বলেন, সিলেটকে আধুনিক ও ডিজিটাল শহর হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। এই সিটি কর্পোরেশনকে এমন পর্যায়ে নিয়ে যেতে চাই যে দেশের অন্য সিটি কর্পোরেশনগুলো আমাদের অনুসরণ করবে।

তিনি আরও বলেন, সিলেট সিটি কর্পোরেশন জনপ্রতিনিধিদের দ্বারা পরিচালিত একটি অন্যতম সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। নগর এলাকার যত উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ সবই জনগণের কল্যাণে। তাই এবারের বাজেট হবে একটি গণমুখী বাজেট।

উল্লেখ্য, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ৭৪৮ কোটি ৬৪ লাখ ৪০ হাজার টাকার বাজেট ঘোষণা করে সিলেট সিটি কর্পোরেশন। ওই বাজেটেও আয় ও ব্যয় সমপরিমাণ ধরা হয় ।