৩৩৩ জন মুক্তিযোদ্ধাকে সিসিকের সংবর্ধনা



সিলেটে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান করেছেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। রোববার (১৬ ডিসেম্বর) বিকেলে নগর ভবনে সিসিকের পক্ষ থেকে নগরীর ৩৩৩ জন মুক্তিযোদ্ধাকে আর্থিক অনুদান ও ফুলেল শুভেচ্ছার মাধ্যমে সংবর্ধিত করা হয়।

সিসিকের কর কর্মকর্তা চন্দন দাশের সঞ্চালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আরিফ বলেন, “মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদের আত্মত্যাগ এবং সাহসিকতার কারণেই আজ আমরা স্বাধীন বাংলাদেশের নাগরিক। তাদের কারণেই আজ আমরা স্বাধীনভাবে চলার ও বলার অধিকার লাভ করেছি।”

তিনি আরো বলেন, “এই দেশের সূর্য সন্তানদের সংবর্ধনা জানাতে পেরে সিলেট সিটি করপোরেশন গর্বিত। জাতির এই শ্রেষ্ঠ সন্তানদের পাশে সবসময় আছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন। তাদের জন্য ইতিমধ্যে হোল্ডিং টেক্স, পানির বিল মওকুফ করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে নগরীর কদমতলীতে নির্মিত হচ্ছে অত্যাধুনিক মুক্তিযোদ্ধা চত্বর।”

এর আগে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী। এতে আরো বক্তব্য রাখেন সিসিকের প্যানেল মেয়র-৩ এবিএম জিল্লুর রহমান উজ্জল, কাউন্সিলর আজম খান, মহিলা কাউন্সিলর শাহানারা বেগম, কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ, ইলিয়াছুর রহমান ইলিয়াছ।

অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মহি উদ্দিন আহমদ, মানিক মিয়া ও সাদ উদ্দিন।

এসময় তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, “প্রতিবছর আমাদের জন্য এ সম্মাননা অনুষ্ঠান আয়োজন করায় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে ধন্যবাদ জানাই। সিটি করপোরেশনে মুক্তিযোদ্ধারা যেকোনো কাজে গেলে ভালো সেবা ও বিনয়ী আচরণ পেয়ে থাকেন তারা।”

এরআগে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন হেলথ ইন্সপেক্টর আব্দুর রাজ্জাক ও গীতাপাঠ করেন কর আদায়কারী জ্যোতিষ চক্রবর্তী।