দক্ষিণ সুরমার জৈন্তার খালের উপর নির্মিত অবৈধ মার্কেট ও কলোনী বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দিলেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী – এলাকাবাসীর আনন্দ-উল্লাস



দক্ষিণ সুরমার জৈন্তার খালের উপর নির্মিত অবৈধ মার্কেট ও কলোনী বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দিলেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী - এলাকাবাসীর আনন্দ-উল্লাস

দীর্ঘ দুই যুগ পর দখল হওয়া দক্ষিণ সুরমার জৈন্তার খালের উপর নির্মিত একটি মার্কেট ও কলোনী বল্ডুজার দিয়ে গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। ফলে উদ্ধার করা হয়েছে কোটি টাকা মূল্যের জমি।
বুধবার (৩ এপ্রিল) দুপুরে নগরীর দক্ষিণ সুরমার মুছারগাঁওয়ের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত জৈন্তার খালের উপর নির্মিত টিন সেডের একটি মার্কেট ও একটি কলোনীতে এ উচ্ছেদ অভিযান চালান সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

দীর্ঘ দুই যুগেরও বেশী সময় থেকে জৈন্তার খাল দখল করে একটি মার্কেট ও কলোনী নির্মাণ করে দখলে নেয় স্থানিয় প্রভাবশালী একটি চক্র। স্থানিয় এলাকাবাসীদের অভিযোগের ভিত্তিতে এ অভিযান চালানো হয়। অভিযানের সময় স্থানিয় মুছারগাঁও এলাকার কয়েক শতাধীক বাসিন্ধা মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে জৈন্তার খাল উদ্ধার করায় ধন্যবাদ জানিয়ে আনন্দ-উল্লাস ও শ্লোগান দেন।

এর আগে সকাল ১০টা থেকে নগরীর প্রবেশমূখ চন্ডিপুল থেকে হুমায়ুন রশীদ চত্তর পর্যন্ত সড়কের দুই পাশের অবৈধস্থাপনা ও অবৈধ ট্রাক স্ট্যান্ড গুড়িয়ে দেয়া হয়। এ অভিযান চলে সন্ধ্যা পর্যন্ত। দিনের মতো অভিযানে অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা ও বেশ ক’টি ট্রাকের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরও করা হয়েছে।

অভিযানে সিসিকের ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-১ মোহাম্মদ তৌফিক বক্স, মোস্তাক আহমদ, সিসিকের ভারপ্রাপ্ত সচিব নুর আজিজুর রহমান, প্রকৌশলী আলী আকবর সহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ২ এপ্রিল মঙ্গলবার সকালে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে উঠা ট্রাক স্ট্যান্ড ও স্থাপনা উচ্ছেদে এক সপ্তাহের অভিযানে নামে সিসিক। সড়কের দুই পাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ না হওয়া পর্যন্ত এ অভিযান চলবে বলে জানান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।